Call Now

ফেসবুক ক্যাম্পেইনে ROAS নির্ণয়

যা যা শেখা যাবে এই ব্লগ থেকে

  • ROAS কি?
  • ফেসবুক ক্যাম্পেইন এর ক্ষেত্রে এ্যাড ম্যানেজার এ কিভাবে ROAS ভ্যালু দেখা যায় সেটি জানা যাবে
  • ফেসবুক এ্যাডের পারফর্মেন্স নিয়ে ধারণা পাওয়া যাবে
  • ফেসবুক মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ROAS এর গুরুত্ব বোঝা যাবে

ROAS = Return on Ad Spend

ROAS এর মানে হল ১ ডলার খরচের বিপরীতে আপনার কত ডলার আয় হল। যে কোন ক্যাম্পেইনের পারফর্মেন্স নির্ণয়ের ক্ষেত্রে এই Metric খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অন্যান্য মেট্রিক যেমন Reach, Engagement, CTR ইত্যাদি মেট্রিক যখন আপনাকে স্পষ্ট ধারণা দিতে ব্যার্থ হয় সেখানে ROAS আপনাকে স্পষ্ট ধারণা দেয়। ব্র্যান্ডিং এর ক্ষেত্রে সঠিক ROAS নির্ণয় করা কঠিন হলেও অন্যান্য ক্ষেত্রে এই মেট্রিক নির্ণয় করা খুবই সহজ। যেমন ধরুণ আপনার একটি ই-কমার্স সাইট রয়েছে কিংবা অন্য যে কোন ধরণের সাইট যেখানে আপনার ওয়েবসাইটের কোন এ্যাকশন কে একটি নির্দিষ্ট ভ্যালু হিসেবে ধরা যায় সেক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই ROAS নির্ণয় করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে খুব সহজেই এটি নির্ণয় করা সম্ভব। আজকে আমরা আলোচনা করব কিভাবে ফেসবুক এ্যাড ROAS নির্ণয় করা সম্ভব। নিচের স্ক্রিনশটে আমাদের একটি ক্যাম্পেইনের পারফর্মেন্স দেখে আসা যাকঃ

উপড়ের স্ক্রিনশট থেকে দেখা যাচ্ছে যে একটি ক্যাম্পেইনের ROAS 1.37 দেখা যাচ্ছে তার মানে হল এই ক্যাম্পেইনে ১ ডলার খরচ করলে ১.৩৭ রেভিনিউ হচ্ছে। আপনাদের বোঝার সুবিধার্থে আরো একটি বিষয় জানিয়ে রাখি আর সেটি হল ফেসবুকের ক্যাম্পেইন স্ট্রাকচার হল নিম্নরূপঃ

ক্যাম্পেইন > এ্যাডসেট > এ্যাড

Free Training

on Strategic & Data Driven Facebook Marketing

Enroll Now for FREE
Article Continues

ক্যাম্পেইন স্ট্রাকচার নিয়ে আরো একটু কথা বলা যেতে পারে। উপড়ের স্ট্রাকচার থেকে আমরা এটুকু বুঝতে পারি যে ক্যাম্পেইনের ভেতর একাধিক এ্যাডসেট এবং একটি এ্যাডসেটের ভিতর অনেকগুলো এ্যাড থাকতে পারে। নিচের ছবি থেকে বিষয়টি আরো পরিস্কার হবে বলে আমার ধারণাঃ

ফেসবুক ক্যাম্পেইন স্ট্রাকচার

সেক্ষেত্রে আমরা চাইলে ROAS ক্যাম্পেইন লেভেল কিংবা এ্যাডসেট লেভেল এবং এ্যাড লেভেলেও নির্ণয় করতে পারি। একটি কথা না বললেই নয় আর সেটি হল আপনি অন্যান্য প্যারামিটার যেমন CTR, CPC কিংবা অন্যান্য মেট্রিক যাই নির্ণয় করুন না কেন ROAS মেট্রিক দেখেই আপনি সর্বোচ্চ সঠিকভাবে আপনার ক্যাম্পেইনের পারফর্মেন্স নির্ণয় করতে পারবেন। যেমন এ্যাডের ক্ষেত্রে একটি কেইস দেখে আসা যাক। আলোচনার সুবিধার্থে আমরা রিপোর্ট কে দুটি ভাগে ভাগ করেছি।

উপড়ের স্ক্রিনশট থেকে দেখা যাচ্ছে যে ৩ নং এ্যাড এর ROAS হল 4.27 এবং সবার উপড়ের এ্যাড এর ROAS হল 2.01. এ থেকে বোঝা যায় যে ৩ নং এ্যাড এ ১ ডলার খরচ হলে এর বিনিময়ে আমরা ৪.২৭ ডলারের রেভিনিউ পাচ্ছি। আবার ১ নং এ্যাডে ১ ডলার খরচ হলে আমরা ২.০১ ডলারের রেভিনিউ পাচ্ছি। এবার দেখে আসি আসলে অন্যান্য মেট্রিক যেমন CTR বেশি হলেই কি ROAS বেশি হয় কিনা। এবার উপড়ের এ্যাডের CTR এবং CPC দেখে আসি।

উপড়ের স্ক্রিনশট থেকে দেখা যাচ্ছে যে এ্যাড-০১ এর CTR হল ২.৭৩ এবং এ্যাড-০৩ এর CTR হল ২.৭১ তার মানে এ্যাড-০৩ এর CTR এ্যাড-০১ এর থেকে কম। কিন্তু বাস্তবতায় কি হচ্ছে। বাস্তবতায় এ্যাড-০৩ এর CTR তুলনামূলকভাবে কম হলেও এ্যাড-০৩ ই আমাদের কে সবথেকে বেশি রিটার্ণ দিচ্ছে (যেটির ROAS হল ৪.২৭)।

তার মানে আমরা এটা বলতে পারি যে CTR বেশি হলেই যে আমি বেশি রিটার্ণ পাব সেটা বলা যাবেনা।

আজকে আমরা আলোচনা করবে যে ফেসবুক এ্যাড ম্যানেজার কিভাবে ROAS মেট্রিক সেট করতে হয়। অতি সাম্প্রতিক আমরা আমাদের একটি প্রোডাক্ট ফেসবুক মার্কেটিং ট্রেনিং টি শুরু করেছি এবং এ ট্রেনিং টি শিক্ষার্থীরা ওয়েবসাইট থেকেই অর্ডার করতে পারে। এ ট্রেনিং এর ভ্যালু হল ২৯৯ টাকা তার মানে হল ৩ ডলারের একটু বেশি। এ ট্রেনিং এর ল্যান্ডিং পেইজ ( https://theturtlesturn.com/advanced-training-on-strategic-data-driven-facebook-marketing/ ) দেখলে বোঝা যাবে যে আমাদের একটি অফার রয়েছে এবং এই অফার বাটনে ক্লিক করলে রেজিস্টার পেইজে ট্রাফিক কে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আলোচনার জন্য একটি বিষয় বলে রাখি সেটি হল এ সমস্ত ডেটা আমরা আমাদের ফেসবুকের পিক্সেলে নিয়ে যাচ্ছি এবং একই সাথে গুগল এ্যানালিটিক্সে নিয়ে যাচ্ছি। ট্রেনিং এর ল্যান্ডিং পেইজ থেকে কিভাবে কিছু তথ্য ফেসবুক পিক্সেলে নিয়ে গিয়ে ROAS নির্ণয় করলাম সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

বিঃদ্রঃ ফেসবুকে কিভাবে পিক্সেল সেট করতে হয় সে বিষয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে Google Tag Manager (GTM) ব্যবহার করে Facebook Pixel সেট করা এই টাইটেলে একটি আর্টিকেল রয়েছে।

Strategic & Data Driven

Digital Marketing Training @2999 BDT

Save 70% Today!
Article Continues

পুরো গল্পটি বুঝতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনাকে ফেসবুকের স্ট্যান্ডার্ড এবং কাস্টম ইভেন্ট ভালোভবে বুঝতে হবে। প্রথমেই আসা যাক ফেসবুক পিক্সেলের স্ট্যান্ডার্ড ইভেন্ট এবং কাস্টম ইভেন্ট নিয়ে। তার আগে আমাদের জানতে হবে ইভেন্ট কি জিনিস। আমাদের ওয়েবসাইট, হোক সেটি সাধারণ ওয়েবসাইট কিংবা ই-কমার্স ওয়েবসাইট সেখানে যখন কোন ইউজার বিভিন্ন এ্যাকশন যেমন সময় কাটানো কিংবা কোথায় ক্লিক করলেন এই বিষয়কেই আমরা ইভেন্ট বলে থাকি। যেমন ধরুন আপনার ওয়েবসাইট কেউ Add to Cart বাটনে ক্লিক করলেন সেই ঘটনাকেও আমরা ইভেন্ট বলে থাকি। আরো অনেক ধরণের ইভেন্ট ওয়েবসাইটে ঘটে থাকে। আসলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবথেকে বড় সুবিধা হল আপনি চাইলে আপনার ট্রাফিকের সমস্ত এ্যাক্টিভিটি ট্র্যাকিং করতে পারবেন এবং সেই ডেটা ব্যাবহার করে ঐ নির্দিষ্ট ট্রাফিক কে বিভিন্ন অফার এবং বিভিন্ন ফানেলের ভেতর নিয়ে যেতে পারেন। যাই হোক ফানেলের গল্প না হয় অন্য একদিন করা যাবে।

স্ট্যান্ডার্ড ইভেন্টঃ ফেসবুকে অনেক ধরণের স্ট্যান্ডার্ড ইভেন্ট রয়েছে যেগুলো ফেসবুক আগে থেকেই ডিফাইন করে রেখেছে যেমন Add to cart , Add to wishlist, Complete registration ইত্যাদি। ফেসবুক পিক্সেলের স্ট্যান্ডার্ড ইভেন্ট সম্পর্কে আরো জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন

ফেসবুক এড নিয়ে আর চিন্তা নয়! টি৩ তে সব হয়।

এড একাউন্ট নেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জানতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন।

Click Here
Article Continues

কাস্টম ইভেন্টঃ আমরা চাইলে যে ইভেন্ট গুলো ফেসবুকে আগে থেকে ডিফাইন করা নেই সেগুলোকে কাস্টম ইভেন্টে ডিফাইন করতে পারি। যেমন ধরুন আমাদের ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স (যেটির ল্যান্ডিং পেজ এর লিঙ্ক – https://theturtlesturn.com/advanced-training-on-strategic-data-driven-facebook-marketing/ ) এ গিয়ে যারা আমাদের কোর্সে রেজিস্ট্রেশন করছেন তাদের রেজিস্ট্রেশনের সাথে সাথে আমরা একটি কাস্টম ইভেন্ট ফায়ার করছি। আমাদের রেজিস্ট্রেশন পেইজে আমরা Wpforms ব্যবহার করেছি। আসলে ROAS নির্ণয়ের জন্য আমরা গুগল ট্যাগ ম্যানেজার ব্যবহার করেছি যাতে করে আমাদের কাজ করতে সুবিধা হয়। যখন কেউ আমাদের ফর্ম পূরণ করেন তখন নিচের লেখাটি স্ক্রিনে ফুটে উঠে।

“এটি একটি থ্যাংক ইউ মেসেজ

বিঃদ্রঃ এখানে থ্যাংক ইউ মেসেজ টি দেয়া হলনা কারণা এই এলিমেন্ট এখানে ব্যবহার করা হলে আমাদের ট্র্যাকিং সিস্টেমে সমস্যা তৈরি হয়। নিচের স্ক্রিনশটে থ্যাংক ইউ মেসেজে কি ছিল এবং ক্লাস হিসেবে কি ব্যাবহার করেছিলাম সেটি স্পষ্ট উল্লেখ আছে।

একটি কথা না বললেই নয় আর সেটি হল ভালো ডেটাভিত্তিক ডিজিটাল মার্কেটার হতে গেলে আপনাকে অবশ্যই নিচের কিছু কিছু বিষয় জানতে হবে আর সেগুলো হলঃ

  • HTML
  • CSS
  • JavaScript

যাইহোক আমরা উপড়ে যে টেক্সট আছে (রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করার পর ইউজার যে লেখাটি দেখতে পায়) সেই লেখাকে আমরা একটি ক্লাসের ভেতর রেখেছি। নিচের স্ক্রিনশট দেখলে বিষয়টি খুব পরিস্কার হবে।

ফেসবুক ক্যাম্পেইনে ROAS নির্ণয়

উপড়ের স্ক্রিনশট থেকে দেখা যাচ্ছে যে আমরা একটি ক্লাস কল করেছি যেটির নাম দিয়েছি FbmConfirmation । এবার আমরা গুগল ট্যাগ ম্যানেজার এর Element Visibility ট্রিগার ব্যবহার করে এই কাস্টম ইভেন্ট টি বাস্তবায়ন করব।

বিনামূল্যে জয়েন করুন

বাংলা ভাষার সবথেকে বড় ডেটাভিত্তিক ডিজিটাল মার্কেটিং কমিউনিটিতে

জয়েন করতে চাই
Article Continues

একটি কথা না বললেই নয় আর সেটি হল গুগল ট্যাগ ম্যানেজার এ কোন ট্যাগ ট্রিগার ছাড়া কাজ করে না। চলুন প্রথমে একটি ট্রিগার সেট করে আসা যাকঃ

এবার আমরা গুগল ট্যাগ ম্যানেজার থেকে একটি ট্রিগার সেট করে আসলাম ঠিক উপড়ের স্ক্রিনশটের মত। উপড়ের স্ক্রিনশটটি একটু পর্যালোচনা করা আসা যাক।

Trigger Type: Element Visibility

Selection Method: CSS Selector

Element Selector: .FbmConfirmation (যেহেতু আমরা একটি ক্লাস করে এসেছি সেহেতু এখান ডট ব্যবহার করা হয়েছে ক্লাসের আগে।

Minimum Percent Visibility: 10 (তার মানে হল এই এলিমেন্ট অর্থাৎ থ্যাংকস মেসেজের ১০% ব্রাউজারে ভিজিবল হলেই এটি ট্রিগার হিসেবে কাউন্ট হবে)

এবার ট্যাগ সেট করার পালা। যেহেতু ফেসবুক ট্যাগ সেট করার পালা।

যেহেতু গুগল ট্যাগ ম্যানেজার এ ফেসবুক পিক্সেলের ট্যাগ সেট করার জন্য ডিফল্ট কোন ট্যাগ নেই সেহেতু আমরা কাস্টম HTML ট্যাগ ব্যবহার করেছি। উপড়ের আমরা সর্বমোট দুটি ট্যাগ সেট করেছি।

প্রথম যে ট্যাগ ব্যবহার করা হয়েছে সেটি একটি কাস্টম ইভেন্ট ফায়ার করানোর জন্য ব্যবহার করা হয়েছে এবং নিচের ট্যাগ টি একটি স্ট্যান্ডার্ড ইভেন্ট। আমরা দেখতে পাচ্ছি যে Purchase ট্যাগের ভ্যালু হিসেবে ৩ ধরা হয়েছে তার মানে যখনই কেউ পেমেন্ট করে রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করবে তখন দুটি ইভেন্ট ফায়ার করবে। এবার এই ৩ ভ্যালুই আমাদের ক্যাম্পেইনে হিট করবে। নিচের স্ক্রিনশটটি দেখলে দেখা যাবে যে কোন একটি এ্যাডের বিপরীতে কিভাবে আমরা ROAS নির্ণয় করছি।

উপড়ের স্ক্রিনশট থেকে দেখা যাচ্ছে যে আমরা কোন একটি নির্দিষ্ট এ্যাডের বিপরীতে ২৫.৫১ ROAS ভ্যালু পাচ্ছি তার মানে হল এই এ্যাডে ১ ডলারের বিপরীতে আমরা ২৫ ডলার রেভিনিউ জেনারেট করছি। এবার আপনার ক্ষেত্রে ডিসিশন নেয়া খুব সহজ হবে যে কোন এ্যাড আপনি রান করবেন আর কোনটি করবেন না।

ব্যস। এটিই আসলে ডেটাভিত্তিক ডিজিটাল মার্কেটিং এর মজা।

Strategic & Data Driven

Digital Marketing Training @2999 BDT

Save 70% Today!
Article Continues
লেখক পরিচিতিঃ

এই ব্লগ পোস্টটি লিখেছেন টি৩ কমিউনিকেশন্স লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ নাজমুল হোসেন। দীর্ঘ ১৩ বছরের ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ারে তিনি পেয়েছেন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি । কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস আপওয়ার্ক এর ব্র্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হিসেবে। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১৪ সালে অর্জন করেন বেসিস আউটসোর্সিং এ্যাওয়ার্ড। ইল্যান্স-ওডেস্ক (বর্তমান আপওয়ার্ক) এ্যানুয়াল ইম্প্যাক্ট রিপোর্টে উঠে এসেছে তার সফলতার গল্প। তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

মোঃ নাজমুল হোসেন

Tags:

Popular Blog

5 comments on “ ফেসবুক ক্যাম্পেইনে ROAS নির্ণয়

  • Great Article Sir! Please keep writing this type or contents.

    Here, in the above trigger setting screenshot’s bottom part, I can see there is an option called “Set Minimum on-Screen duration”.
    Now my question is, if I attach a video sales letter in the thank-you page (through which I might try to make my customer aware of my another best offer which will costs a little bit more)

    Is it possible to separate those traffics who watched the video and who didn’t , while both of them reached the thank-you page? because I want to re-target both of them depending on their nature where my goal is to move them to the next part of the customer value journey

    And it seems we have to use the google tag manager to get some extra data which is not available in the Facebook ad manager. so, is it possible to import those data from google tag manager to Facebook so that I can use them for my next campaign?

    Once again thanks a lot for this Article

  • Mansura Manik Mou

    Nice Post

  • Mansura Manik Mou

    Good

  • Mansura Manik Mou

    Nice

Leave a Comments

0
0 item
My Cart
Empty Cart